সাইক গ্রুপের একটি প্রতিষ্ঠান

Search

+

ইমপ্লয়মেন্ট জেনারেশন প্রোগ্রাম ২০১৪

সাইক পলিটেকনিকে আপনাকে স্বাগতম

বাংলাদেশ কারিগরি শিক্ষা বোর্ড অনুমোদিত সর্ব বৃহৎ প্রাইভেট পলিটেকনিক

বাংলাদেশ কারিগরি শিক্ষা বোর্ড অনুমোদিত, Saic Group পরিচালিত সাইক ইনস্টিটিউট অব ম্যানেজমেন্ট অ্যান্ড টেকনোলজি(SIMT) ওয়ার্ল্ড ব্যাংকের অনুদান প্রাপ্ত সর্ব বৃহৎ প্রাইভেট পলিটেকনিক।

প্রযুক্তির যুগোপযোগী বিস্তার ও ব্যবহারে লক্ষে দক্ষ জনশক্তি গড়ার মানসিকতা নিয়ে ২০০১ ইং সালের জুন মাসে কেবল মাত্র একটি Technology (Diploma in Computer Engineering) নিয়ে Saic Institute of Management & Technology (SIMT) এর যাত্র শুরু। যাত্রা শুরুর প্রথম বছরেই SIMT অনুমোদিত আসন সংখ্যার সবকটিতে ছাত্র-ছাত্রী ভর্তি করতে সক্ষম হয়। ২০০৩-০৪ শিক্ষাবর্ষ থেকে পর্যায়ক্রমে টেকনোলজি ও আসন সংখ্যা বৃদ্ধি পেয়ে ২০১৮-১৯শিক্ষাবর্ষে এসে বর্তমানে ১২টি টেকনোলজি ও ১০০৮টি আসনে উন্নীত হয় এবং অনুমোদিত সকল আসনে ছাত্র-ছাত্রী ভর্তি করতে সক্ষম হয়।

কোর্স সমূহ

সিভিল টেকনোলজি
সিভিল টেকনোলজি

পৃথিবীতে উন্নত রাষ্ট্রগুলো ক্রমেই উন্নত হচ্ছে এবং উন্নয়নশীর রাষ্ট্রগুলো উন্নতির দিকে ধাবিত হচ্ছে। রাষ্ট্র উন্নয়ন বলতে বুঝায় সে দেশের অর্থনৈতিক অবকাঠামো, যাতায়াত ব্যবস্থা উন্নয়ন এব ইমারতগুলোর উন্নয়ন।

কম্পিউটার টেকনোলজি
কম্পিউটার টেকনোলজি

তথ্য প্রযুক্তি বর্তমান বিশ্বকে গ্লোবাল ভিলেজে পরিণত করেছে। ডিপ্লোমা ইন ইঞ্জিনিয়ারিং টেকনোলজি আপনাকে সামিল করবে এই কম্পিউটার প্রযুক্তিবিদদের প্রথম সারিতে। এই কম্পিউটার ডিপ্লোমা ডিগ্রী হবে অবারিত কম্পিউটার সম্পর্কীত কর্ম ক্ষেত্রে প্রবেশের আপনার প্রথম চাবিকাঠি।

টেলিকমিউনিকেশন টেকনোলজি
ডিপ্লোমা ইন টেলিকমিউনিকেশন টেকনোলজি

বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তির অগ্রযাত্রার সঙ্গে সঙ্গতি রাখা ও আধুনিক সভ্যতায় টেলিকমিউনিকেশনের অবদানের জন্যই বিশ্ব এখন হাতের মুঠোয়। তাই Telecommunication ইঞ্জিনিয়ারদের জন্য অপেক্ষা করছে নিশ্চিত এবং উজ্জ্বল ভবিষ্যত।

মেরিন টেকনোলজি
ডিপ্লোমা ইন মেরিন টেকনোলজি

মেরিন ইঞ্জিনিয়ারিং Challenging এবং অর্থনৈতিকভাবে সমৃদ্ধ একটি পেশা। এই পেশাতে জাহাজের ইঞ্জিনিয়ার হিসেবে অল্প সময়ে আত্ননির্ভরশীল হয়ে উঠতে পারে এবং দেশের অর্থনৈতিক সমৃদ্ধিতে অবদান রাখতে পারে। একজন ডিপ্লোমা মেরিন ইঞ্জিনিয়ার সল্পসময়ে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত নাবিক হিসেবে গড়ে তুলতে পারে।

ইলেকট্রিক্যাল টেকনোলজি
ডিপ্লোমা ইন ইলেকট্রিক্যাল টেকনোলজি

বিজ্ঞানী ভোল্টা কর্তৃক Electricity আবিস্কারের পর থেকেই মূলতঃ আধুনিক সভ্যতার যাত্রা শুরু। Electricity ছাড়া আমাদের জীবন যেমন অচল, Electrical Technology ছাড়াও পৃথিবী তেমনি অচল। ফলে Electrical Technology এর চাহিদা ক্রমশই বৃদ্ধি পাচ্ছে।

টেক্সটাইল টেকনোলজি
ডিপ্লোমা ইন টেক্সটাইল টেকনোলজি

বাংলাদেশে ১৯৭৭ সালে সর্বপ্রথম বস্ত্রখাতের সূচনা হয়। জন্মইলেও বস্ত্র, মরিলেও বস্ত্র, হাটি হাটি পা করে ১৯৭৭ থেকে ২০১১ সালের মধ্যে বস্ত্রখাতের সর্বোচ্চ সমপ্রসারণ হয়।

ইলেকট্রনিক্স টেকনোলজি
ডিপ্লোমা ইন ইলেকট্রনিক্স টেকনোলজি

আধুনিক সভ্যসমাজে বিজ্ঞানের প্রত্যেকটি আবিস্কারের পেছনে রয়েছে ইলেকট্রনিক্সের অবদান। এছাড়া স্বাস্থ্য সংক্রান- বিষয়ে সকল প্রকার রোগ নির্ণয়ের ক্ষেত্রে ইলেকট্রনিক্সের বিকল্প কিছু হতে পারে না। কাজেই এই দ্রুত উন্নয়শীল সমাজে Electronics Engineering একটি গুরুত্বপূর্ণ শাখা হিসেবে অবস্থান করছে।

আর্কিটেকচার টেকনোলজি
ডিপ্লোমা ইন আর্কিটেকচার টেকনোলজি

আধুনিক যুগে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির উন্নতির সাথে সাথে স্থাপনা শিল্পেও এসেছে নতুনত্ব। আর্কিটেকচারে এই উন্নয়নকে কাজে লাগিয়ে তৈরী করা হচ্ছে আরামদায়ক গ্রহণযোগ্য শিল্প মন্ডিত ও রুচি সম্মত সুন্দর স্থাপনা।

মেকানিক্যাল টেকনোলজি
ডিপ্লোমা ইন মেকানিক্যাল টেকনোলজি

বর্তমান বিশ্বে মেকানিক্যাল টেকনোলজিকে Mother টেকনোলজি নামে আখ্যায়িত করা হচেছ। পৃথিবীতে উন্নত রাষ্ট্রগুলো উন্নত হচ্ছে এবং উন্নয়নশীল রাষ্ট্রগুলো উন্নতির দিকে ধাবিত হচেছ। তাই মেকানিক্যাল টেকনোলজিতে ডিপ্লোমা ধারীর জন্য অপেক্ষা করছে নিশ্চিত ভবিষ্যত।

আমাদের কোর ভেল্যু

আমাদের মিশন

আন্তর্জাতিক মান সম্পন্ন একটি প্রাইভেট পলিটেকনিক ইনস্টিটিউট গড়ে তুলতে এসআইএমটি বদ্ধ পরিকর।

আমাদের ভিশন

১। আন্তর্জাতিক মানের মানসম্মত কারিগরি শিক্ষা প্রদান করা।
২। CBT&A মেথডে ব্যবহারিক ও তাত্ত্বিক ক্লাস নিশ্চিত করা ও দক্ষ প্রকৌশলী তৈরি করা।
৩। নৈতিকতা উন্নায়ন ও নেতৃত্ব প্রদানের ক্ষমতা বৃদ্ধিকরণ।
৫। শতভাগ মানসম্মন কর্মসংস্হানের ব্যবস্থা করা।

১২ টি টেকনোলজিতে ৪ বছর মেয়াদী ডিপ্লোমা ইন ইঞ্জিনিয়ারিং কোর্সে ভর্তি চলছে…

 

ওয়ার্ল্ড ব্যাংক থেকে ৩৮৪০০ টাকা বৃত্তি ও ছাত্রীদের বেতনের ২৫% ছাড়!!

দ্রুত যোগাযোগ





আমাদের এক্টিভিটিজ

প্রমোশন কমিটি
প্লেসমেন্ট কমিটি
একাডেমিক কমিটি
সন্ত্রাস জঙ্গীবাদ ও অসাম্প্রদায়িকতা বিরোধী কমিটি
IPMU (Institutional Project Management Unit)
IMC ( Institutional Management Committee)

সাইক পলিটেকনিক সম্পর্কে

বিশিষ্ট জনের মন্তব্য সমূহ

মানুষের আগ্রগতির সবচেয়ে বড় নিয়ামক শক্তি হল তার শিক্ষা। আর এই শিক্ষা যদি হয় কর্মমুখী শিক্ষা তাহলে তো কথাই নেই। শিক্ষা প্রসারের উদ্দেশে তথা আমদের দেশে তথ্য প্রযুক্তির বিকাশের লক্ষে বাংলাদেশ সরকার বেসরকারী প্রতিষ্ঠান অনুমোদনের যে বাস্তব পদক্ষেপ গ্রহন করেছে, তারই আলোকে Saic Institute of Management and Technology (SIMT) প্রতিষ্ঠিত হয়।

সোহেলি ইয়াছমিন, ব্যবস্থাপনা পরিচালক, সাইক পলিটেকনিক

জীবন ও জীবিকার জন্য অত্যাবশ্যকীয় কারিগরি ও বৃত্তিমূলক শিক্ষার মধ্যে নিহিত আছে জনগণের কল্যাণ, উন্নয়ন ও অগ্রগতির চাবিকাঠি। কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি, দারিদ্র্য বিমোচন ও আর্থ সামাজিক উন্নয়নে এ শিক্ষার গুরুত্ব অপরিসীম। এই বাস্তবতার নিরীখে বর্তমানে সাইক ইনস্টিটিউট অব ম্যানেজমেন্ট এন্ড টেকনোলজি দেশে কারিগরি ও বৃত্তিমূলক শিক্ষার ব্যাপক প্রসার ও মানোন্নয়নের বেশ কিছু সময়পোযোগী পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে।

ডঃ মো মোস্তাফিজুর রহমান, চেয়ারম্যান বাংলাদেশ কারিগরি শিক্ষাবোর্ড

বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তির অগ্রযাত্রার সঙ্গে সঙ্গতি রক্ষা ও সক্ষমতা অর্জন এবং জাতীয় পর্যায়ে উচ্চ শিক্ষা ও আধুনিক জ্ঞান চর্চার ক্ষেত্রে যথাযথ গুরুত্ব প্রদানসহ পঠন-পাঠন ও গবেষনা কার্যক্রম সমপ্রসারণকল্পেই Saic Educational Society এর উদ্যোগে Saic Institute of Management & Technology (SIMT) প্রতিষ্ঠিত হয়।

আবু হাসনাত মোঃ ইয়াহিয়া, চেয়ারম্যান, সাইক পলিটেকনিক

আমাদের ডেডিকেটেড শিক্ষক মন্ডলী (ডি.হেড)

কর্মঠ, পরিশ্রমী ও নিবেদিত
শারমিন সুলতানা
ডিপার্মেন্টাল হেড

B.Sc in Computer

চৈতালী দাস
ডিপার্টমেন্টাল হেড

B.Sc in Electrical

আব্দুল মান্নান
ডিপার্টমেন্টাল হেড

B.Sc. in Civil

মোঃ আরজ আলী
ডিপার্টমেন্টাল হেড

M.Sc in Chemistry

মোশারফ হোসাইন
ডিপার্টমেন্টাল হেড

B.Sc. in Textile.

সমির মোস্তাক
ডিপার্টমেন্টাল হেড

M.Sc in EEE