Aircraft Maintenance Engineering (AME) হচ্ছে কোন আকাশযানের উড্ডয়ন পূর্বে সকল ধরনের বাহ্যিক ও অভ্যন্তরীণ পরীক্ষা নিরীক্ষা, পর্যবেক্ষণ, মেরামত সম্পর্কিত বিজ্ঞানভিত্তিক জ্ঞান। বিমান তৈরী, মেরামত , পর্যবেক্ষণ এবং এ সমন্ধীয় যাবতীয় ডিজাইন এ বিষয়ের অন্তর্ভূক্ত। একজন AME ইঞ্জিনিয়ার হচ্ছেন লাইসেন্সপ্রাপ্ত একজন ব্যক্তি যিনি বিমানের জাতীয় ও আন্তর্জাতিক মান নিশ্চিত করে থাকেন। একমাত্র Aircraft Maintenance Engineer বিমান উড্ডয়নের পূর্বে বিমানের বাহ্যিক ও অভ্যন্তরীণ সকল সিস্টেমগুলো ঠিক আছে কিনা তা পর্যবেক্ষণ করার পর বিমানকে আকাশে উড়ার অনুমতি দিয়ে থাকনে।

Aircraft Maintenance Engneering

  • এয়ারক্রাফট মেইনটেন্যান্স বর্তমান বিশ্বে খুব অত্যাধুনিক গতিশীল ও যুগোপযোগী টেকনোলজি। ইঞ্জিনিয়ারিং এর এই শাখায় আকাশপথ এবং স্যাটেলাইট নিয়ে ডিজাইন, ডেভেলপমেন্ট ও রিসার্স করা হয়। বিমান নির্মাণ ও ডিজাইন করে এইরূপ প্রতিষ্ঠানগুলো চাকরির সুযোগ রয়েছে।
  • সরকারি বেসরকারি বিভিন্ন এয়ারলাইন্স-এ এয়ারক্রাফট ইঞ্জিনিয়ারদের জন্য পর্যাপ্ত পরিমাণে কর্মক্ষেত্রের সুযোগ রয়েছে। সার্ভিস ইঞ্জিনিয়ার ও এয়ারক্রাফট ইঞ্জিনিয়ার হিসেবে দেশে বিদেশে কাজের অপার সুযোগ রয়েছে।
  • B.Sc in Mechanical Engineering (Bangladesh)
  • B.Sc in Electronics and Electrical Engineering (Bangladesh)
  • B.Sc in Aerospace Engineering (Abroad)
  • B.Sc in Avionics Engineering (Abroad)
  • B.Sc in Marine Engineering (Abroad)
  • B.Sc in Shipbuilding Engineering (Abroad)
  • SSC / সমমান পরীক্ষায় যেকোন গ্রুপ থেকে জিপিএ ২.৫০ পেয়ে উত্তীর্ণ। ২০১০-২০১৭ সালের পাশকৃত ছাত্র-ছাত্রীরা আবেদন করতে পারবে।
  • HSC (ভোকেশনাল) উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীরা ক্রেডিট ট্রান্সফারের মাধ্যমে শূন্য আসনে ৪র্থ পর্বে ভর্তি হওয়ার সুযোগ পাবে।
  • HSC (বিজ্ঞান) উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীরা শূন্য আসনে ৩য় পর্বে ভর্তি হওয়ার সুযোগ পাবে।