আমাদের সাংস্কৃতিক কার্যক্রম

শিক্ষার সঙ্গে ‘সংস্কৃতি’ শব্দটি অঙ্গাঅঙ্গিভাবে জড়িত। সংস্কৃতি ছাড়া শিক্ষার বিষয়টা পরিপূর্ণতা পায় না। শিক্ষা ও সংস্কৃতিই পারে মানুষকে সভ্য হিসেবে গড়ে তুলতে। এজন্য প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকেই সাইক ইনস্টিটিউট অব ম্যানেজমেন্ট এন্ড টেকনোলজী (এসআইএমটি) ছাত্র/ছাত্রীদের কেবল প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষার মধ্যেই সীমাবদ্ধ রাখেনি। একাডেমিক শিক্ষার পাশাপাশি ছাত্র/ছাত্রীদের সংস্কৃতিমনা হিসেবে গড়ে তোলা, মেধা ও মননশীলতার বিকাশে নাচ, গান, কবিতা আবৃতি, ক্রীড়া প্রতিযোগীতা, বার্ষিক বনভোজনসহ বিভিন্ন সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করে থাকে। প্রতি বছর নির্দিষ্ট সময়ে ক্যাম্পাসে শিক্ষার্থীদের পাশাপাশি শিক্ষক-কর্মকর্তাদের নিয়েও মাসব্যাপী  বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগীতা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণকারীদের মধ্য থেকে বিজিতদের পুরস্কৃত করা হয়। এছাড়া বার্ষিক “জব পেস্নসমেন্ট শিরোমনী”সহ সাইকের নিজস্ব বিভিন্ন অনুষ্ঠানে শিক্ষার্থীরা নানা ইভেন্ট উপস্থাপনা করে থাকে।

সাইক গ্রুপ অব ইনস্টিটিউশনের সম্মানীত চেয়ারম্যান জনাব আবু হাসনাত মো. ইয়াহিয়া স্যার সামনের দিনগুলোতে বাৎসরিক সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানটি শুধুামাত্র সাইকের ইঞ্জিনিয়ারিং ক্যাম্পাসের মধ্যে সীমাবদ্ধ না রেখে শিক্ষার্থীদের প্রতিভা বিকাশে সারা দেশে ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা সাইক গ্রুপের সবগুলো প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের নিয়ে আয়োজন করার পরামর্শ দিয়েছেন। ফলে এখন থেকে আরো একটু বড় পরিসরে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের ব্যবস্থা করা হবে। এতে করে সংস্কৃতিমনা শিক্ষক-কর্মকর্তা ও শিক্ষার্থীদের মধ্যে আগ্রহ আরো বাড়বে।

সংক্ষিপ্ত ও ছোট পরিসরে আমাদের সাংস্কৃতিক কার্যক্রম পরিচালিত হলেও এই ছোট পরিসরের আয়োজন থেকেই সাইকের বেশ কিছু শিক্ষার্থী রয়েছে যারা বর্তমানে প্রফেশনালী বেতার, রেডিও-টেলিভিশনসহ বিভিন্ন জায়গায় নাচ, গান ও রেডিও জকি (আরজে)সহ বিভিন্ন সাংস্কৃতিক কার্যক্রমে অংশগ্রহণ করছে। সামনের দিনগুলোতে তারা নিজেদের স্ব স্ব অবস্থানে আরো ভালো ভূমিকা রাখবে বলে আমাদের আশাবাদ।