মেরিন ইঞ্জিনিয়ারিং Challenging এবং অর্থনৈতিকভাবে সমৃদ্ধ একটি পেশা। এই পেশাতে জাহাজের ইঞ্জিনিয়ার হিসেবে অল্প সময়ে আত্ননির্ভরশীল হয়ে উঠতে পারে এবং দেশের অর্থনৈতিক সমৃদ্ধিতে অবদান রাখতে পারে। এই কোর্সটি মেকানিক্যাল, ইলেকট্রিক্যাল, থার্মাল এবং কন্ট্রোল ইঞ্জিনিয়ারিং এর mgwš^Z রূপ বলে একে ‘ইন্ট্রিগ্রেটেড ইঞ্জিনিয়ারিং’ বলা হয়। একজন ডিপ্লোমা মেরিন ইঞ্জিনিয়ারের একই সঙ্গে জল ও স্থল দুটি সেক্টরেই কর্মদক্ষতার সুযোগ রয়েছে। বর্তমান উন্নত বিশ্বে মেরিন ইঞ্জিনিয়ার পদবীকে একটি সম্মানজনক পদ হিসেবে অভিহিত করা হয়। একজন ডিপ্লোমা মেরিন ইঞ্জিনিয়ার সল্পসময়ে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত নাবিক হিসেবে গড়ে তুলতে পারে।

Marine Technology

মেরিন ইঞ্জিনিয়ারিং এমন একটি টেকনোলজি যেখানে Power Plant পরিচালনা এবং মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং সংশ্লিষ্ট বিষয়, সামুদ্রিক জাহাজ, ডক এবং স্থলভিত্তিক Engine Installation and Maintenance সম্পর্কে পূর্ণাঙ্গ ধারণা দেওয়া হয়। একজন মেরিন ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার নিজেকে সে সকল কর্মক্ষেত্রে জড়িত করতে পারে সেগুলো হচ্ছে পাওয়ার প্লান্ট, ডিজেল ও গ্যাস ইঞ্জিন অপারেশন ও মেইনটেন্যান্স , বিভিন্ন সরকারী বেসরকারী জাহাজের ইঞ্জিনিয়ার এবং বিভিন্ন ইঞ্জিন মেনুফেকচারিং কোম্পানী গুলোতে সহকারী প্রকৌশলী হিসেবে কাজ করতে পারে।
  • B.Sc in Mechanical Engineering (Bangladesh)
  • B.Sc in Electronics and Electrical Engineering (Bangladesh)
  • B.Sc in Aerospace Engineering (Abroad)
  • B.Sc in Avionics Engineering (Abroad)
  • B.Sc in Marine Engineering (Abroad)
  • B.Sc in Shipbuilding Engineering (Abroad)
  • SSC / সমমান পরীক্ষায় যেকোন গ্রুপ থেকে জিপিএ ২.৫০ পেয়ে উত্তীর্ণ। ২০১০-২০১৭ সালের পাশকৃত ছাত্র-ছাত্রীরা আবেদন করতে পারবে।
  • HSC (ভোকেশনাল) উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীরা ক্রেডিট ট্রান্সফারের মাধ্যমে শূন্য আসনে ৪র্থ পর্বে ভর্তি হওয়ার সুযোগ পাবে।
  • HSC (বিজ্ঞান) উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীরা শূন্য আসনে ৩য় পর্বে ভর্তি হওয়ার সুযোগ পাবে।